32.8 C
Rajshahi
Friday, March 5, 2021
Home সারাদেশ চারঘাটে বিদ্যালয়ের মাঠে বালুর স্তূপ বিঘ্নিত হচ্ছে স্বাভাবিক পরিবেশ

চারঘাটে বিদ্যালয়ের মাঠে বালুর স্তূপ বিঘ্নিত হচ্ছে স্বাভাবিক পরিবেশ

চারঘাট প্রতিনিধি: রাজশাহীর চারঘাট উপজেলার নিমপাড়া ইউনিয়নের জাগিরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে এক মাস ধরে বালু স্তূপ করে রাখা হয়েছে। এর ফলে বিদ্যালয়ের স্বাভাবিক পরিবেশ বিঘিœত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষক ও স্থানীয়রা। তবে স্তুপ করে রাখা বালুর মালিক কে, তা কেউ বলতে পারেনি।
বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক নেক পারভিন বলেন, ‘বিদ্যালয়ের সভা-পতি মর্জিনা বেগমের স্বামী আবুল কালাম আজাদ ফোন করে বলেছিলেন একজন ঠিকাদার সামান্য কিছু বালু বিদ্যালয়ের মাঠে রাখবে। সপ্তাহ খানেকের মধ্যে সেই বালু সরিয়ে নেবেন তারা। তখন করোনার কারনে বিদ্যালয়ও বন্ধ ছিল। কয়েকদিনের তো ব্যাপার ভেবে রাখতে দিই। কিন্তু মাস হয়ে যাওয়ার পরও এসব সরিয়ে নিচ্ছেন না। কে বালু রেখেছে এখন সেটাও কেউ বলতে পারছে না। রাতে বড় বড় ট্রাকে বালু আসছে আর দিনের বেলায় ট্রলিতে করে সেই বালু নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বড় ট্রাকের চাকায় পুরো মাঠ নষ্ট হয়ে গেছে।’
প্রধান শিক্ষকের কার্যালয় সূত্র জানায়, ১৯৪৫ সালে স্থাপিত বিদ্যালয়টিতে বর্তমানে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৫৩ জন। প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় বিদ্যালয়ে পাসের হার শতভাগ। বিদ্যালয়ের মোট জমির পরিমাণ প্রায় এক একর। এর অনেকখানি জায়গা জুড়ে বালু রাখায় স্থানীয় কিশোরদের খেলাধুলা করতে সমস্যা হচ্ছে। বাতাসে বালু উড়ে বিদ্যালয়ের ক্লাসরুম গুলো নষ্ট হবার উপক্রম হয়েছে।
স্থানীয় বাসিন্দা ও অভিভাবকরা বলেন, প্রায় এক মাস আগে থেকে বিদ্যালয়ের মাঠে বালুর স্তুপ হতে থাকে। এখন প্রতিনিয়তই বালু আনা নেওয়া চলছে। বালুর ব্যবসা চলছে মাঠে। তবে কার বালু তা কেউ বলতে পারেনি। বালু রাখায় স্থানীয় শিশু কিশোরদের খেলাধুলা বন্ধ হয়ে গেছে। এছাড়াও শিক্ষক শিক্ষার্থীদের প্রয়োজনে বিদ্যালয়ে চলাচল করতে সমস্যা হচ্ছে। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে বালুর মালিককে শনাক্ত করে তা সরিয়ে ফেলার দাবি জানান তারা।
বিদ্যালয়ের সভাপতি মর্জিনা বেগম ও তার স্বামী আবুল কালাম আজাদ বলেন, মাঠে বালুর ব্যবসা হচ্ছে না। নাটোরের এক ঠিকাদার পার্শ্ববর্তী বাগাতিপাড়া উপজেলায় রাস্তার কাজ করছে। ঠিকাদারের নাম তারা জানেন না। ঠিকাদার তাদের কাছে থেকে অনুমতি নিয়ে সাত দিনের জন্য বালু রেখেছিল। কিন্তু এখন আর ঐ ঠিকাদার ফোন ধরছেনা। তবে প্রতিনিয়ত বালু আনা নেওয়া হচ্ছে বিদ্যালয়ের মাঠে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রশিদা ইয়াসমিন বলেন, বিদ্যালয়ের মাঠে বালু স্তুপ করে রাখার বিষয়টি আমার জানা ছিল না। তবে খুব দ্রুত বিষয়টি খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় শীঘ্রই আসছে নীতিমালা

নিজস্ব প্রতিবেদক: খাদ্যে ট্রান্সফ্যাট একটি অযাচিত উপাদান এবং তা নিত্য খাদ্য দ্রব্যের সাথে গ্রহণের ফলে যে সকল স্বাস্থ্যক্ষতি ও মৃত্যু সংঘটিত হচ্ছে...

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টি-২০ ক্রিকেট চ্যাম্পিয়ন ফাইটার রাজশাহী

নিজস্ব প্রতিবেদক: কুমারপাড়া রাইডার্স কে ১৯ রানে পরাজিত করে রাঙ্গাপরী ১ম বঙ্গবন্ধু টি-২০ গো- কাপ ক্রিকেট প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে...

ক্ষুধা-দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে জয়ী হলেই উন্নয়নের মহাসড়কে যাত্রার সাহস আসে : প্রধানমন্ত্রী

এফএনএস: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কৃষি সমৃদ্ধির উৎকর্ষে খাদ্য নিরাপত্তার স্বস্তি আসে। ক্ষুধা ও দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে সংগ্রামে জয়ী হলেই কেবল উন্নয়নের মহাসড়কে...

নগরীতে চক এন্ড বিনস ক্যাফের উদ্বোধন

রাজশাহী মহানগরীর উপশহরে চক এন্ড বিনস ক্যাফের উদ্বোধন করা হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন প্রধান অতিথি হিসেবে...

Recent Comments